মঙ্গলবার, ০৩ অগাস্ট ২০২১, ০৫:২৬ অপরাহ্ন

পরিচয় মিলেছে নিহত মিশুক চালকের,মামলা করেছেন স্ত্রী

পরিচয় মিলেছে নিহত মিশুক চালকের,মামলা করেছেন স্ত্রী

ফতুল্লায় ব্যাটারী চালিত মিশুক চালক কে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করে মিশুক ছিনতাইয়ের ঘটনায় নিহত মিশুক চালকের প্রথম স্ত্রী রেহেনা আক্তার (৩৫) বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা দুই জনকে আসামী করে বৃহস্পতিবার দুপুরে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

মামলায় উল্লেখ্য করা হয় যে,নিহত মিশুক চালক আনোয়ার হোসেন(৩৯) চাঁদপুর জেলার কচুয়া থানার মৃত আবুল হাসেমের পুত্র।নিহত আনোয়ার হোসেন (দ্বিতীয় স্ত্রী সাফিয়া বেগম কে নিয়ে) ফতুল্লা থানার কোতালেরবাগ বৌ বাজারস্থ মুক্তিযোদ্ধা মঞ্জুর সাহেবের বাসায় ভাড়ায় বসবাস করতেন এবং নিজ মালিকানাধিন ব্যাটারী চালিত মিশুক গাড়ী চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করতেন।

নিহত আনোয়ার হোসেন বুধবার(১৬ জুন)রাত সাড়ে আটটার দিকে তার বৌ বাজারস্থ বাসা থেকে মিশুক নিয়ে বের হয়। রাত্র অনুমান ১২ টার সময় ফতুল্লা থানার রামারবাগ স্টেডিয়ামের সামনে হইতে ২ জন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তি নিহত আনোয়ার হোসেনের মিশুক গাড়ী নন্দলালপুর যাওয়ার কথা বলিয়া ভাড়া করে। পরবর্তীতে একই তারিখ রাত্র পৌনে দুইটার দিকে জাতীয় জরুরী সেবা ৯৯৯ এর মাধ্যমে ফতুল্লা থানা পুলিশ সংবাদ পায় যে, একজন ব্যক্তির লাশ পিলকুনী মোল্লা বাড়ি জামে মসজিদের উত্তর পাশে নন্দলালপুর-শিয়াচর গামী রাস্তার উপর পড়িয়া আছে।

পরে পুলিশ সংবাদ পেয়ে লাশ লাশ উদ্ধার করিয়া সুরতহাল রিপোর্ট প্রস্তুত করিয়া ময়না তদন্তের জন্য জেনারেল হাসপাতাল (ভিক্টোরিয়া), নারায়ণগঞ্জ মর্গে প্রেরণ করেন এবং লাশের পাশে পড়ে থাকা তাহার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনের মাধ্যমে নিহতের পরিবারের সদস্যদের সাথে যোগাযোগ করেন। তখন জানতে পারি যে, অজ্ঞাতানামা দুষ্কৃতিকারীরা বুধবার দিবাগত রাত রাত ১২টা হতে রাত পৌনে ২টার মধ্যো কোন এক সময় আনোয়ার হোসেনকে অজ্ঞাত স্থানে ধারালো অস্ত্র দ্বারা আঘাত করে হত্যার পর তার ব্যাটারী চালিত মিশুক, ( যাহার মূল্য অনুমান ১ লক্ষ টাকা ) ছিনাইয়া নিয়ে য়ায় এবং লাশ গোপন করার জন্য পিলকুনী জামে মসজিদের উত্তর দিকে নন্দলালপুর-শিয়াচর গামী রাস্তার উপর ফেলে রেখে যায়।

নিহতের দ্বিতীয় স্ত্রী সাফিয়া বেগম জানায়, তার স্বামী বুধবার রাত সাড়ে আটটার দিকে বাসা থেকে বের হয়। বৃহস্পতিবার সকাল ৭টার দিকে তার স্বামীর প্রথম স্ত্রী তাকে ফোন করে জানায় যে তার স্বামীকে হত্যা করা হয়েছে এবং মৃত দেহ ফতুল্লা থানায় রয়েছে। নিহত মিশুক চালক আনোয়ার হোসেনের প্রথম স্ত্রী’র সংসারে দুই ছেলে ও দুই মেয়ে রয়েছ।দ্বিতীয় স্ত্রীর সংসারে কোন সন্তানাদি নেই বলে জানায় নিহতের স্বজনেরা। ফতুল্লা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রকিবুজ্জামান জানান, নিহত মিশুক চালক আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা দুই জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেছে। ঘটনার সাথে জড়িতদের চিহ্নিতসহ গ্রেপ্তার করার জন্য পুলিশের একাধিক টিম কাজ করছে বলে তিনি জানান।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বাংলাদেশে কোরোনা

সর্বশেষ (গত ২৪ ঘন্টার রিপোর্ট)
আক্রান্ত
মৃত্যু
সুস্থ
পরীক্ষা
সর্বমোট



© All rights reserved 2020
Desing & Developed BY Virtual IT